• মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০১:২৯ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
ব্রেকিং নিউজ :

কুড়িগ্রামের রাজিবপুরে ক্লু-লেস হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন ও মূলহোতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের রাজিবপুরে অটো ছিনতাই করে নৃশংসভাবে হত্যার ঘটনায় ঘটনার সাথে জড়িত ২জন মূলহোতা গ্রেফতার ও চোরাই অটো উদ্ধার করেছে রাজিবপুর থানা পুলিশ।

কুড়িগ্রাম জেলার রাজিপুর উপজেলায় গত ৩০ জানুয়ারি ২০২৪ সকাল আনুমানিক ৮ ঘটিকায় রাজিবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা অজ্ঞাতনামা একজন ব্যক্তিকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। উক্ত বিষয় রাজিবপুর থানা পুলিশ সংবাদপ্রাপ্ত হয়ে তাৎক্ষণিকভাবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপস্থিত হয়ে লাশের সুরত হাল প্রস্তুত করে এবং অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির পরিচয় উদঘাটনের চেষ্টা চালায়। অনুসন্ধানে জানা যায় মৃত ব্যক্তি রৌমারী থানা এলাকার একজন অটো ভ্যান চালক।

ভিকটিমের স্বজনের উপস্থিতিতে জানা যায় গত ২৯ জানুয়ারি ২০২৪ সকাল ৮ ঘটিকায় অটো বাইক চালক ভিকটিম এনামুল হক ( ৫২) অটো নিয়ে বাহির হয়। রাত আটটা পর্যন্ত বাড়িতে না ফেরায় তার স্বজনেরা আশপাশে খোঁজাখুঁজি করে জানতে পারে ভিলটিম তার অটো গাড়িতে অজ্ঞাতনামা দুইজন ব্যক্তি সহ রাজিবপুরের দিকে গেছে। নিখোঁজ ভিকটিম এনামুল হক কে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে তার ভাই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পারে রাজিবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অজ্ঞাতনামা মৃত ব্যক্তি আছে। পরে এনামুল হকের ভাই হাসপাতালে এসে মৃত অজ্ঞতা নামা ব্যক্তি কে তার ভাই বলে সনাক্ত করে। পরবর্তীতে ভিকটিম এনামুল হকের স্ত্রী মোসাম্মৎ আয়েশা খাতুন রাজিবপুর থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

রাজিবপুর থানায় মাৃলা রুজুর পর তাৎক্ষণিকভাবে রাজিবপুর থানার একটি চৌকস টিম রৌমারী ও রাজিবপুর এলাকার রাস্তার বিভিন্ন পয়েন্টে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরা ফুটেজ নিবিড় পর্যালোচনা করে এক পর্যায়ে অটো গাড়িতে থাকা দুই অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির ছবি সংগ্রহে সক্ষম হয়। তারপর তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার এবং সর্বোচ্চ মেধার এনালাইটিকাল সক্ষমতা প্রয়োগের মাধ্যমে মাত্র ১৬ দিনে আসামি সনাক্তকরণ মামলার মোটিভ উদঘাটন সহ আসামির অবস্থান সনাক্ত করে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অভিযান পরিচালনা করে মামলার সঙ্গে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত দুই জন আসামি ময়মনসিংহ মুক্তাগাছা এলাকার মোঃ আবু হানিফ (৬৫) ও রাজবাড়ী জেলা সদরের মোঃ ফারুক মিয়া (৪৫) দ্বয়কে গ্রেফতার ও তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক তাদের দেখানো স্থান হতে ছিনতাই হওয়া অটো উদ্ধার করে রাজিবপুর থানা পুলিশ।

কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশের মিডিয়া মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) জনাব মোঃ রুহুল আমীন বলেন, রাজিবপুরের অটো ছিনতাই করে নৃশংস হত্যার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সাথে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে। গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জেলায় ছিনতাই চুরি সহ চেতনাশক বিষ প্রয়োগে চুরির মত অসংখ্য মামলা বিদ্যমান। আসামীরা আন্তজেলা অটো ছিনতাই চক্রের সক্রিয় সদস্য। নিরাপদ কুড়িগ্রামের লক্ষ্যে আমাদের অভিযান অব্যহত রয়েছে। আমরা সকলের সম্মিলিত সহযোগিতা কামনা করি।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।